বাড়ি ছেড়ে মুম্বাইয়ে পাড়ি দিয়েছিলেন প্রাঞ্জল বিশ্বাস, মঞ্চে গান গাইতে গাইতে মাকে দেখে কান্নায় ভেঙে পড়লেন শিশু শিল্পী, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

আমি বাউল হতে চাই…। ছেলেবেলায় অনেকের অনেক কিছু বায়না থাকে—নতুন পোশাক পরা…দামি চকোলেট খাওয়া…বাবা-মায়ের হাত ধরে,

কাছেপিঠে বেড়াতে যাওয়া। কিন্তু প্রাঞ্জলের বায়না ছিল একটাই—‘আমাকে বাউলের আখরায় নিয়ে যাবে।’ ছেলে এমন আবদার ফেলতে পারতেন,

না বাবা নদীয়ার করিমপুরের গোরভাঙার সেই আখরা থেকে মুম্বইয়ের দূরত্ব নেহাৎ কম নয়। সেই দূরত্ব ঘুচিয়ে দিচ্ছে প্রাঞ্জলের স্বর ও সুর।

একতারা নিয়ে সে অডিশন পর্বে গেয়েছিল- ‘আমার মন মজাইয়ারে দিল মজাইয়া মুরশিদ নিজের দেশে যাও…কিংবা ‘আমায় ভাসাইলি রে, ডুবাইলি রে…।’ সপ্তমে তার সুরের স্থায়ীত্ব দেখে তখন লাফিয়ে ওঠেন জাতীয় স্তরের সনি টিভি চ্যানেলের সুপারস্টার সিঙ্গার শোয়ের বিচারকরা। হাততালিতে গমগম করে দর্শকাসন। আর তখনই বাংলার লোকগান একসূত্রে গেঁথে দেয় বহুত্ববাদী ভারতকে। বাড়ি ছেড়ে মুম্বাইয়ে পাড়ি দিয়েছিল প্রাঞ্জল বিশ্বাস সেখানে গিয়ে সুপারস্টার সিঙ্গারের মঞ্চ একাই কাঁপিয়ে তুলেছিল প্রাঞ্জল। সম্পতি প্রাঞ্জল মঞ্চে গান গাইতে গাইতে মাকে দেখে কেঁদে ফেলল। ভাইরাল হল সেই ভিডিও। ভিডিও শুরু হতেই প্রাঞ্জলের একটি গান শোনা গেল। প্রথমেই প্রাঞ্জলের গলায় শোনা গেল “যার মন ভালো নয় যার দিল ভালো নয়” গানটি। এত দুর্দান্তভাবে প্রাঞ্জল গান গাইলো যে তার গান শুনে প্রত্যেকজন বিচারক পুরো হা হয়ে গেলেন।

হাতে বাউল নিয়ে যেভাবে প্রাঞ্জল মঞ্চে সুর তুলে ছিল তা একেবারে দেখার মতন ছিল। এই গানটি থেকে হঠাৎ করেই প্রাঞ্জল অন্য একটি গান ধরল। প্রাঞ্জল গাইলো “মেরে মেহেবুব কেয়ামত হোগি”। প্রাঞ্জলের এমন গান গাওয়া দেখে সকলেই পুরো অবাক। এরপরে আবারো একটি ভিডিও দেখা গেল যেখানে প্রাঞ্জল কে গাইতে শোনা গেল আর ডি বর্মনের গাওয়া “ইয়ে কেয়া হুয়া”। প্রাঞ্জল সব ধরনের গান এই যে গাইতে পারে এটা সে প্রত্যেক বার মঞ্চে প্রমাণিত করে দিয়েছে। তাই জন্য এই প্রাঞ্জলের এই গান গাওয়ার মুহূর্তের ভিডিওগুলো সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিদিন ভাইরাল হয়। এদিকে মঞ্চে উপস্থিত সব নামিদামি গানের শিল্পীরা ও মুগ্ধ হয়ে গেল প্রাঞ্জলের গান শুনে। এমন সুর দিয়ে প্রাঞ্জল গান গায় তার গান শুনে মনে হবে একদম জন্মের পর থেকেই সে এই গানের দক্ষতা অর্জন করে নিয়েছে। এরপরে প্রাঞ্জলের আরো একটি গানের ভিডিও ভাইরাল হতে দেখা গেল। আর এই ভিডিওতেই দেখা গেল প্রাঞ্জল গান গাওয়ার আগে মঞ্চে এসে কেঁদে ফেলল। কারণ প্রাঞ্জলের বাড়ির কথা খুবই মনে পড়ছিল। প্রাঞ্জল বলে তার দিদি বাবা সবাই বাড়িতে রয়েছে,

তাই প্রাঞ্জলের খুবই বাড়ির কথা মনে আসছে। তাই জন্য ও প্রাঞ্জল কে সবাই মিলে চুপ করায়। প্রাঞ্জলের মা ও মঞ্চে উঠে আসে এবং প্রাঞ্জল মাকে জড়িয়ে ধরে কাঁদে। আসরে বাড়ি ছেড়ে মুম্বাইয়ের মতন দেশে পাড়ি দিয়ে এসে অনেকদিন আগেই প্রাঞ্জল স্বপ্ন পূরণ করতে সেই জন্যই তার চোখে জল এসে গেছে। এরপর প্রাঞ্জল কে গলা ছেড়ে হাতে বাউল নিয়ে গান গাইতে শোনা যায়। মুম্বাইয়ের মঞ্চে দাঁড়িয়ে প্রাঞ্জল দুর্দান্তভাবে তার বাউল গান গেয়ে শোনায় সকলকে। এই দিন মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন বিশেষ অতিথি হিসেবে মনোজ মুনতাসির‌। তিনি প্রাঞ্জল এর গান শুনে বাহ্ বাহ্ করে ওঠেন। লতা মঙ্গেশকর এবং মান্না দের গাওয়া খুবই বিখ্যাত একটি গান “যশোমতী মাইয়া সে বলে নন্দলাল”। এই গানটি এই দিন মঞ্চে অসাধারণভাবে পরিবেশন করল প্রাঞ্জল। প্রাঞ্জলের মা ও ছেলের গান শুনছিলেন মুগ্ধ হয়ে। সকল ক্যাপ্টেনরা ও প্রাঞ্জলের গান শুনে উঠে দাঁড়িয়ে পড়ল এবং সকল বিচারকরা বাহ বাহ করতে লাগলো। সম্প্রতি এই ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে ইউটিউবে LIV Music নামের একটি চ্যানেল থেকে। গত তিন সপ্তাহ আগে ভাইরাল হওয়া এই ভিডিও বর্তমানে দেখেছে ৫০৩ হাজার মানুষ আর লাইক করেছেন ৪.৪ হাজার মানুষ।