ঠিক যেন বাঙালি বাবু! পুজো মঞ্চে টলি তারকার সাথে ঝরঝরে বাংলায় কথা ধোনির মুখে! বাঙালি সমর্থকদের হৃদয়ে জায়গা করে নিলেন ভারতের সেরা অধিনায়ক

ঝাড়খণ্ডের ছেলে থেকে ভারতীয় ক্রিকেট টিমের অন্যতম সেরা অধিনায়ক, জার্নিটা সহজ ছিল না। কিন্তু মানুষ কবেই বা কার স্ট্রাগল মনে রাখে।

মানুষের মনে রাখা কেবল সাফল্যেই সীমাবদ্ধ। সেই কারণেই মহেন্দ্র সিং ধোনির ব্যাট বল ঘেরা জীবন নিয়েই চর্চা মানুষের।

কিন্তু বাঙালিরা জানেন কি? ক্রিকেটার হ‌ওয়ার আগে ইন্ডিয়ান রেল‌ওয়েতে টিকিট কালেক্টরের চাকরি করতেন মাহি? তার পোস্টিং ছিল খড়গপুরে।

হ্যাঁ, বঙ্গের মাটিতেই দীর্ঘদিন কাজ করেছেন তিনি। কথাটা অনেকের‌ই অজানা তাই ধোনির মুখে বাংলা শুনে আকাশ থেকে পড়ার জোগাড় বহু অনুরাগীর‌ই। দূর্গাপূজা সম্বন্ধিত অনুষ্ঠান উপলক্ষে কলকাতায় এসেছিলেন মাহি। সেখানেই কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, “আমি ভালো করে বাংলা বুঝতে পারি।” এবং এই গোটা লাইনটি স্পষ্ট বাংলায় বলেন তিনি। বলাই বাহুল্য তাঁর মুখে বাংলা শুনে ফেটে পড়েন দর্শকরা। করতালি আর ‘মাহি মাহি’ স্বরে গমগম করে ওঠে অডিটোরিয়াম। এদিকে অনুরাগীদের শান্ত করতে তৎক্ষণাৎ নিজেকে সামলে নেন ক্যাপ্টেন কুল। হিন্দিতে বলেন, “এর থেকে বেশী বাংলা বলব তো ভুলভাল বলে দেব।”

এই গোটা মুহুর্তটির ক্লিপিংস এখন ঘুরে বেড়াচ্ছে স্যোশাল মিডিয়াতে। ভিডিওতে মাহির পাশে রয়েছেন অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত এবং অভিনেতা অম্বরিশ ভট্টাচার্য। ভারতের অন্যতম সেরা অধিনায়কের মুখে বাংলা শুনে চমকিত তাঁরাও। তাঁদের মুখেও সে ছাপ স্পষ্ট। প্রসঙ্গত, খড়্গপুরে থাকার সুবাদে এবং তাঁর স্ত্রী সাক্ষীর কলকাতায় আসা যাওয়ার সুবাদে বাংলাটা বেশ দখলে রয়েছে মাহির। প্রসঙ্গত, এদিন ধোনির সঙ্গে অনুষ্ঠানের পর ঋতুপর্ণা এবং অম্বরীশ একটি ফটোসেশন‌ও করেন। ধোনীর সঙ্গে সেলফি পোস্ট করে অম্বরীশ লেখেন, “ধনীর সঙ্গে ছবি তুলতে গেলে রাজা হতে হয় বৈকি!” প্রসঙ্গত, ছবিতে অম্বরীশের মাথায় রাজাসুলভ একটি পাগড়ি ছিল। প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার পর ধোনির অবসরের জল্পনা আর‌ও বেড়ে চলেছে দিনপ্রতি। সম্প্রতি ধোনি আইপিএল থেকেও অবসরের ইঙ্গিত দিয়েছেন।