বাড়ির উঠানে মাটি খুঁড়তেই কিলবিলিয়ে বের হচ্ছে কিং কোবরা সাপের বাচ্চা, যুবকের হাতে ধরতেই ঘটল বিপত্তি, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

সাপ কিন্তু খুব‌ই ভীতু শ্রেণীর প্রাণী। তবে তারা যতই ভীতুর শ্রেণীর প্রাণী হোক না কেন, মানুষ সাপকে বড়ই ভয় পায়। সাপ দেখলে এটা মানুষ,

ভাবতে বসেনা সেই সাপ বিষাক্ত নাকি বিষহীন। তাই সাপের থেকে দূরে থাকতেই পছন্দ করে মানুষেরা। সাপের নাগাল থেকে দূরে থাকাই,

মঙ্গল বলে মনে করা হয়। কিন্তু পৃথিবীতে এমন‌ও কিছু মানুষ আছে যারা সাপকেও পোষ্য রুপে লালন পালন করে থাকে।

এমন মানুষ পেতে আপনাকে খুব দূরে যেতে হবে না। ঘুরে আসুন বাংলাদেশের পাটুয়াখালিতে। সেখানেই রয়েছেন রাজ্জাকভাই। দেশে তিনি পরিচিত স্নেকম্যান নামে। যেখানেই সাপ ধরা পড়ে তিনি ছুটে যান। এবং সেই সাপকে সংগ্রহ করে নিয়ে আসেন। তার কাছে রয়েছে অসংখ্য সাপ। সেই সাপ যখন ডিম দেয়, তা ফুটিয়ে বাচ্চা বের করেও নিজের সংগ্রহে রাখেন তিনি। এই করে এখন একটা সাপ খামার তৈরি হয়ে গিয়েছে তাঁর। কিন্তু সমস্যা হল সাপকে তো আর সবাই পছন্দ করে না। তাই কুকুর বেড়ালের ছানা ফার্ম থেকে বিক্রি করা গেলেও সাপের ছানাকে নিতে কেউই আগ্রহ প্রকাশ করে না। এদিকে বড় হতে থাকা সাপেদের খাদ্যখাওয়ারের যোগান‌ও বেশ খরচসাপেক্ষ। সরকারের থেকেও তিনি কোনো সাহায্য‌ই পান না।

তাই সম্প্রতি নিজের ইউটিউব চ্যানেলে তিনি একটি ভিডিও আপলোড করেছেন। যেখানে তিনি সরকারের কাছে আবেদন জানিয়েছেন যাতে তাঁকে সাপের খামারের লাইসেন্স দেওয়া হয়। দর্শকদের‌ও অনুরোধ করেছেন যাতে তারাও সরকারের কাছে লাইসেন্সের জন্য আবেদন করেন। ভিডিওতে তিনি দেখিয়েছেন তাঁর কাছে এক গামলা সাপের ছানা রয়েছে। কিন্তু তাঁদের কোনো চিড়িয়াখানা বা স্নেকগার্ডেন নিতে চায় না। যদি সরকার তাকে অনুমতি দেয় তবে তিনি নিজের খামারটিই একটি স্নেক গার্ডেনে পরিনত করতে পারবেন। সেখানে সাপ চাষ করতে পারবেন। সাপের বিষ থেকে যে জীবনদায়ী ওষুধ তৈরি হয় তার জোগান দিতে পারবেন। প্রসঙ্গত, তাঁর ইউটিউব চ্যানেলের নাম বিডি স্নেক মাস্টার। সেই চ্যানেলে গিয়ে আপনি বিভিন্ন সাপের ভিডিও দেখতে পারবেন।