বিরল প্রজাতির সাপ হাতে নিয়ে খেলতে মত্ত সুন্দরী যুবতী, ভিডিও তুমুল ভাইরাল

সাধারণত সাপ জঙ্গলের মধ্যে থাকে। এছাড়াও কোনও ফাঁকা এলাকায় বা মাটির মধ্যে গর্ত করে থাকে সাপ। সাধারণত মানুষ সাপের ক্ষতি না করলে,

তারাও মানুষের কোনও ক্ষতি করে না। আসলে সাপ নিজদের বাঁচাতে মানুষের উপরে আক্রমণ করে। এখনও এমন কিছু বিষাক্ত সাপ রয়েছে,

যা কামড়ালে মানুষের মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। তাই সাপকে অনেকেই ভয় পায় এবং এদের থেকে দূরত্ব বজায় রাখতে পছন্দ করে।

সাধারণ মানুষের মনে আতঙ্কের সঞ্চার করতে সাপ একাই একশো! যতই তাকে ‘নিরীহ প্রাণী’ বলে আখ্যা দেওয়া হোক না কেন; বিষধর বা বিষহীন সব সাপের থেকেই সাধারণ মানুষ শত হস্ত দূরে থাকে। তবুও সোশ্যাল মিডিয়ার পাতাতে তাদের নানান কর্মকান্ড উঠে আসে, যেগুলি সাধারণ মানুষ অধিক পছন্দ করে। এবার সোশ্যাল মিডিয়ার পাতায় এক অন্যরকম সাপের ভিডিও ভাইরাল হল, যা দেখে সাধারণ মানুষের গা রীতিমত শিউরে উঠছে। অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নের একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, বছর এগারোর এক ছোট্ট মেয়ে মেলবোর্নের রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় হঠাৎ একটি বিষধর প্রজাতির সাপ দেখতে পায়; সঙ্গে সঙ্গে সে সেটিকে নিজের অজান্তেই হাতে তুলে নেয়। এবার ক্যামেরার সামনে সে বলতে থাকে, “এই যে বিশাল আকৃতির সাপ”!

এমন একটি দৃশ্য দেখে সাধারণ মানুষেরা স্বাভাবিকভাবেই আতঙ্ক প্রকাশ করেছে।সোশ্যাল মিডিয়ায় স্টুয়ার্ট গাট নামে এক সাপ উদ্ধারকারী কর্মী ভিডিওটি তুলে ধরেছিল। সে এই ভিডিওর মাধ্যমে জানিয়েছে সাপটি একটি বিরল প্রজাতির সাপ, যার একটা কামড়েই ওই ছোট্ট মেয়েটি শেষ হয়ে যেতে পারত। মেয়েটি নিজের অজান্তেই এমন একটি কাজ করে ফেলেছে, যা দেখে হতবাক নেটপাড়ার বাসিন্দারা। কিন্তু ভিডিওতে মেয়েটির এমন সাহসিকতা দেখে সাধারণ মানুষ পুরোই অবাক হয়ে গেছে। তবে ওই সাপ উদ্ধারকারী কর্মীটি বারংবার সাধারণ মানুষকে সাবধান করেছে পথ চলতি এইসব সাপেদের থেকে দূরে থাকার পরামর্শ দিয়েছে। ভিডিওটি ফেসবুক থেকে ভাইরাল হয়েছে এবং ইতিমধ্যে ভিডিওটি লক্ষ লক্ষ মানুষ দেখে নিয়েছেন এবং চারিদিকে শেয়ার করে আরো মানুষকে দেখার সুযোগ করে দিয়েছেন।