ভরা মঞ্চে রোমান্টিক মুডে গান গাইতে গাইতে অন্তরঙ্গ রোম্যান্সে মাতলো ঋষি-কাব্য জুটি, ভাইরাল ভিডিও

প্রতিভাকে গোটা দেশের সামনে নিয়ে আসার ক্ষেত্রে রিয়্যালিটি শোগুলির জুরি মেলা ভার। বহু বছর ধরে সেই কাজটাই করে চলেছে ইন্ডিয়ান আইডল।

বর্তমানে চলছে এর ১৩ তম সিজন। কিছুদিন আগেই শুরু হয়েছে ইন্ডিয়ান আইডল। এবছর বিচারকের আসনে রয়েছেন হিমেশ রেশমিয়া,

নেহা কক্কর ও বিশাল দাদলানি। এই সিজনে মোট ১৫ জন প্রতিযোগী একে অপরকে টেক্কা দেবে গানের মহাযুদ্ধে।

তাঁরা হল অযোধ্যার ঋষি সিং, জম্মু কাশ্মীরের চিরাগ কোতোয়াল, রাঁচির শগুন পাঠক, লক্ষ্ণৌয়ের বিনীত সিং, অমৃতসরের থেকে নবদ্বীপ ওয়াদালি এবং রুপম ভারনাহিয়া, বরোদার শিভম সিং, গুজরাতের কাব্য লিমাহে, কলকাতার বিদীপ্তা চক্রবর্তী, অনুষ্কা পাত্র, সেঁজুতি দাস, সঞ্চারী সেনগুপ্ত, সোনাক্ষী কর, দেবস্মিতা রায় এবং প্রীতম রায়। বলাই বাহুল্য এই সিজনে বঙ্গ প্রতিভাদের জায়গা অনেক বেশী। সম্প্রতি টেলিকাস্ট হয়েছিল দীপাবলী স্পেশাল পর্ব। এই পর্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডান্সিং লেজেন্ড গোবিন্দা।

এদিন জুটি বাঁধেন চিরাগ এবং কাব্য। ‘লাখো হ্যায় মাগার তুম সা ইয়া’ গানটি ধরে তাঁরা। তাঁদের একে অপরের সাথে সমঝোতা এবং বন্ডিং দেখে মুগ্ধ হন গোবিন্দা। গানটি উপভোগ করতে দেখা যায় নেহা কক্করকে। বাকি প্রতিযোগী এবং মেন্টররাও গানের তালে নাচতে থাকে। তাঁদের পারফরম্যান্স বিচারকদের তো বটেই দর্শকের‌ও ভীষণ পছন্দ হয়েছে। তাই দর্শকদের অনুরোধে তাদের এই গান পোস্ট করে ট্রেন্ড ওয়ালা নামক একটি ইউটিউব চ্যানেল। মাত্র দুই সপ্তাহ আগে পোস্ট করা ভিডিওটি ইতিমধ্যেই,

প্রায় সাড়ে তিন লাখ মানুষ দেখে ফেলেছেন। লাইক করেছেন সাড়ে সাত হাজার। সেখানে দাবি করা হয়েছে পবনদ্বীপ অরুনীতার মতো চিরাগ এবং কাব্যর জুটিও আগামীতে দর্শকদের পছন্দ হবে। এমনকি অরুদ্বীপকেও হারিয়ে দিতে পারে তাঁরা। যদিও অধিকাংশ নেটিজেন‌ই এই দাবি অস্বীকার করে। প্রসঙ্গত, ইন্ডিয়ান আইডলের গত সিজনের বিজেতা ছিলেন পবনদ্বীপ রাজন এবং প্রথম রানার্স আপ হয়েছিলেন অরুনীতা। এবার দেখার চিরাগ-কাব্য‌ও বিজয়ী হ‌ওয়ার পথে এগোয় কিনা!