ভরা মঞ্চে প্রেমিকা অনুষ্কাকে জড়িয়ে ধরে অন্তরঙ্গ রোম্যান্সে মাতলেন ঋষির, ভাইরাল ভিডিও

কে কাকে পেছনে ফেলে এগিয়ে যাবে সেরা গায়কের শিরোপা ছিনিয়ে নিতে, তা নিয়েই সরগরম সোনি টিভির জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো।

আর এই কারণেই ইন্ডিয়ান আইডলের টিআরপি দিনদিন চড়চড় করে বাড়ছে। প্রথমত, দেশের তস্য প্রান্ত থেকে খুঁজে আনা খাঁটি প্রতিভাগুলি ও দ্বিতীয়ত,

ছবির প্রমোশন কিংবা বিশেষ অতিথি হয়ে বলিউডি তারকাদের আগমন… এই দুইয়ের কারণে ইন্ডিয়ান আইডল সেরার সেরা।

এবছর বিচারকের আসনে রয়েছেন হিমেশ রেশমিয়া, নেহা কক্কর ও বিশাল দাদলানি। এবারের প্রতিযোগীরা‌ও আর বারের মতো তাঁদের গানের জাদু দিয়ে দর্শক থেকে বিচারক সকলের মন জিতে নিতে সক্ষম হয়েছেন।এবারে ১৫ জন প্রতিযোগী একে অপরকে টক্কর দিচ্ছে। তাঁরা হল অযোধ্যার ঋষি সিং, জম্মু কাশ্মীরের চিরাগ কোতোয়াল, রাঁচির শগুন পাঠক, লক্ষ্ণৌয়ের বিনীত সিং, অমৃতসরের থেকে নবদ্বীপ ওয়াদালি এবং রুপম ভারনাহিয়া, বরোদার শিভম সিং, গুজরাতের কাব্য লিমাহে, কলকাতার বিদীপ্তা চক্রবর্তী, অনুষ্কা পাত্র, সেঁজুতি দাস, সঞ্চারী সেনগুপ্ত, সোনাক্ষী কর, দেবস্মিতা রায় এবং প্রীতম রায়।

বলা বাহুল্য এবছর বঙ্গ প্রতিভাদের স্থান একটু বেশীই রয়েছে জনপ্রিয় এই মঞ্চে। এবং মাত্র একমাসের মধ্যেই জনপ্রিয়তা অর্জন করে ফেলেছে বাংলার অনুষ্কা পাত্র ও বিদীপ্তা চক্রবর্তী। অন্যদিকে অযোধ্যার ঋষি সিংও এই দুই বঙ্গকন্যার সঙ্গে জুটি বেঁধে লা জবাব পারফরম্যান্স দিচ্ছে প্রতি এপিসোডে। ড্রিম ডেবিউর দিন থেকেই বিচারকদের বশ‌ করে ফেলেছেন এরা সুরের মায়ায়। হিমেশ রেশমিয়া ঋষির পারফরম্যান্স দেখে চিমটি খেতে বাধ্য হয়েছিলেন, কারণ তিনি বিশ্বাস করেননি এতো ভালো পারফরমেন্স অনস্টেজ হতে পারে।

অন্যদিকে অনুষ্কার বয়স ১৫ শুনে বিশাল দাদলানির মাথায় হাত পড়েছিল। কারণ তিনি জানিয়েছিলেন, এই বয়সে এত ভালো গান গাওয়া তো দূর এই গানের মানে বোঝাও অধিকাংশ কিশোরীর পক্ষে অসম্ভবের সামিল।এখন ও পর্যন্ত সমস্ত এপিসোডের প্রোমো মার্জ করে পোস্ট করা হয়েছে নেক্সট লেভেলের ইউটিউব চ্যানেল থেকে। ইতিমধ্যেই সেই ভিডিও ষাট হাজারের বেশী মানুষ দেখে ফেলেছেন। লাইক করেছেন পাঁচশোর বেশী মানুষ। কমেন্ট করে ঋষি, অনুষ্কা ও বিদীপ্তাকে ভালোবাসা জানিয়েছেন অনুরাগীরা। এখন দেখার ইন্ডিয়ান আইডল শেষে সেরার শিরোপা কি এরাই নিয়ে যাবে নাকি অন্য কেউ এসে ছিনিয়ে নেবে সম্মান।