ওজন কম হওয়ায় চিন্তা তে আছেন? জেনেনিন সহজেই ওজন বাড়ানোর কার্যকরী উপায়

বর্তমান সময়ে দুই ধরনের মানুষ সবচেয়ে বেশি চোখে পড়ে। এক. যারা অতিরিক্ত ওজন এর সমস্যায় ভুগছেন, দুই. যারা কম ওজন এর সমস্যাতে ভুগছেন। তবে আপনি যদি কম ওজন হওয়ার কারণে টেনশানে থাকেন। তবে এখন থেকে সব টেনশান ছেড়ে দিন। কারণ আপনি একটু চেষ্টা করলেই সহজেই নিজের ওজন বাড়িয়ে নিতে পারেন।

তবে যারা অতিরিক্ত ওজন নিয়ে ভুগছেন তারা কিন্তু সহজে নিজের ওজন কমাতে পারেনা। তাই চিন্তা না একটু ভাবুন আপনি ওজন কম হওয়ার কারণে মোটাদের থেকে অনেক সুখে আছেন। তবে অতিরিক্ত ওজন কম ভালো নয়। সেক্ষেত্রে আপনি কিছু নিয়ম মেনে চললেই এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন।

সাধারণভাবে মনে করা হয় মেদহীন হালকা-পাতলা গড়নের নারী-পুরুষদের সবাই পছন্দ করেন। এরা যা ইচ্ছে তা-ই খেতে পারেন, যা ইচ্ছা তা-ই পড়তে পারেন! কিন্তু এরা কি নিজেদের শরীর নিয়ে সন্তুষ্ট? এরা কি যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসী?

বাস্তবতা হলো এমন মানুষদের অনেকেই নিজেদের হালকা-পাতলা শরীরটা নিয়ে দুর্ভাবনায় থাকেন। আবার কেউ কেউ তো দিনমান ‘রোগা-পটকা’, ‘তালপাতার সেপাই’ ইত্যাদি শুনতে শুনতে অতিষ্ঠ।
যে যা-ই বলুক, শরীরটা ঠিকঠাক আছে কিনা সেটা বোঝার একটা ভালো উপায় হলো ‘বডি মাস ইনডেক্স’ বা উচ্চতা ও ওজনের অনুপাতের হিসাব। সে অনুযায়ী ওজন কম হলে বিষয়টা ভাবা প্রয়োজন। কেননা অতিরিক্ত ওজন যেমন স্বাস্থ্যের জন্য বিপদজনক তেমনি অতিরিক্ত ওজনহীনতাও বিপদ ডেকে আনতে পারে। হালকা-পাতলা শরীরটায় বাসা বেঁধে থাকতে পারে রক্তশূন্যতা, ঝামেলা থাকতে পারে পরিপাকের। এ ছাড়া মেয়েদের ক্ষেত্রে গর্ভধারণের ঝুঁকি ও হাড়ের দুর্বলতাও চিন্তার বিষয়। তো আজকের এই প্রতিবেদনটি তে সহজেই ওজন বাড়ানোর কিছু উপায় শেয়ার করা হবে। যেগুলো ফলো করে খুব সহজেই আপনি নিজের ওজন বাড়িয়ে নিতে পারেন। তো চলুন দেখে নেওয়া যাক সেই উপায় গুলি-

১. শরীরচর্চা করুন:

আমরা বেশিরভাগ মানুষই এই জিনিসটাই খেয়াল করতে ভুলে যায়। সারাদিন কাজ করার মাঝে নিজের শরীরের দিকে একটুও টাকায় না। শরীরচর্চা করার ফলে আপনার খিদে সাধারণের থেকে বাড়বে ফলে আপনার ওজনও বাড়তে শুরু করবে।

২. খাবার পরিমান বাড়ান:

আপনি যদি অল্প খাওয়ার কারণে রোগ হয়ে থাকেন। তবে আপনাকে খাওয়া বাড়াতেই হবে। খাওয়া বাড়ানোর কথা বলছি মানে এই নয় যে একেবারে আজ থেকেই এক গাদা খাওয়া শুরু করে দিলেন। না আপনাকে ধীরে ধীরে খাবারের পরিমান বাড়াতে হবে।

৩. সকলে খান বাদাম,ছোলা, কিসমিস:

ওজন বাড়ানোর জন্য ছোলা বাদাম কিসমিস এর কোনো বিকল্প হয়না।আপনি যদি ওজন বাড়তে চান সকলে ঘুম
থেকে উঠেই এই গুলো খেতে পারেন। তবে যাদের হজমের সমস্যা হয় তারা ছোলা হালকা সিদ্ধ করে খাবেন।

৪. সাবু দানা:

ওজন বাড়ানোর জন্য সবুর দানা ভীষণ কার্যকরী। আমরা ছোটবেলায় অনেকেই হয়তো এটা খেয়েছি। সাবু দানার সংঙ্গে দুধ মিশিয়ে খাওয়া যায় তবে চমৎকার ফল পাওয়া যায়।

৫. আলু:

ওজন বাড়াতে আলু দারুন কাজে আসে। আমরা জানি আলুতে ব্যাপক পরিমানে কার্বহাইডেট থাকে যা আমাদের ওজন বাড়াতে সাহায্য করে। তাই প্রতিদিন এক পিস করে আলু আপনার ওজন অনেক বাড়িয়ে দেবে। এই ছিলো ঘরোয়া উপায়ে ওজন বাড়ানোর কিছু সহজ উপায়। আশা করছি আমাদের আজকের এই প্রতিবেদন আপনাদের ভালো লেগেছে। ধন্যবাদ এতক্ষন আমাদের সঙ্গে জুড়ে থাকার জন্য। ভালো থাকুন, সুস্থ্য থাকুন।